নিউজপলিটিক্স

রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে দায়ের হল পকসো ধারায় মামলা। অস্বস্তিতে কংগ্রেস।

নিজস্ব প্রতিবেদন: দিল্লিতে ধর্ষণ করে পৈশাচিক ভাবে হত্যা করা হয়েছে এক ৯ বছরের দলিত বালিকাকে। এই ঘটনায় সারা দেশ যথেষ্ট উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। গত বুধবার ওই ধর্ষিতা নাবালিকার পরিবারের সাথে সাক্ষাৎ করতে গিয়েছিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। কিন্তু তিনি তাঁদের সাথে সাক্ষাৎ করতে গিয়ে এমন একটি কান্ড ঘটিয়েছেন যার ফলে রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা গেছে গত রবিবার বিকাল বেলায় ওই নাবালিকা বাড়ির কাছেই একটি শ্মশানের কুলার থেকে পানীয় জল আনতে গিয়েছিলো । সেখানেই ওই নাবালিকাকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করার পর খুন করেছে ওই শ্মশানের এক পুরোহিত এবং তার তিন সঙ্গী। অভিযুক্ত পুরোহিত রাধেশ্যাম এবং তার তিন সাগরেদকে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ‌ ওই নাবালিকাকে ধর্ষণ করে খুন করার পর নাবালিকার বাবা-মাকে না জানিয়েই বর্বরোচিতভাবে ওই নাবালিকার প্রাণহীন দেহ পুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল তারা।

আরও পড়ুন-“বিজেপির সাথে লড়াইয়ে তৃণমূলকে পাশে দরকার”- স্পষ্ট বার্তা দিলেন সূর্যকান্ত মিশ্র

এই ঘটনায় যথেষ্ট সরব হয়েছে বিরোধী দলগুলি। ‌ আর এই ঘটনায় বিক্ষোভ প্রকাশ করতে গিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় নির্যাতিতা নাবালিকার বাবা মায়ের ছবি পোস্ট করে বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। ‌জানা গিয়েছে গত বুধবার দিল্লিতে নির্যাতিতার পরিবারের সাথে দেখা করেছেন রাহুল গান্ধী। ‌ তার পরেই তিনি নির্যাতিতার বাবা মায়ের সাথে টুইটারে ছবি পোস্ট করেন এবং লেখেন”এই মা বাবার চোখের জল শুধু তাঁর মেয়ের জন্য সুবিচার চাইছে।

আরও পড়ুন-“উত্তরপ্রদেশ‌ই দেশকে বিকাশের পথ দেখিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাবে”- বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

তাদের এই সুবিচারের দাবিতে আমি তাদের সঙ্গে আছি।”এই মর্মে টুইটারকে নোটিশ পাঠিয়েছে NCPCR. পকসো আইন ভঙ্গের অভিযোগ তুলে রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে বিচার বিভাগীয় তদন্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button