নিউজটেক নিউজরাজ্য

আত্মসমর্পণ করেছিল ২২০ জন মাওবাদী। গতকাল তাদের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র দিলো রাজ্য সরকার।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা ভারতজুড়ে বর্তমানে মাওবাদী সমস্যাটি একটি উদ্বেগজনক সমস্যা বলে গণ্য হয়েছে। ভারতের বিশেষ করে ঝাড়খন্ড, পুরুলিয়া, রাঁচি প্রভৃতি অঞ্চলে মাওবাদীদের প্রভাব এখনো অনেকটাই রয়েছে। তবে কয়েকবছর আগেই জঙ্গলমহলে রাজ্য পুলিশ এবং সিআরপিএফ এর যৌথবাহিনী বারবার অভিযান চালিয়ে জঙ্গলমহল থেকে মাওবাদীদের উপদ্রব অনেকটাই কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। রাজ্য সরকার বারবার মাওবাদীদের কাছে আবেদন করেছে মূলস্রোতে ফিরে আসার জন্য।

ইতিমধ্যেই বহু মাওবাদী অস্ত্র ছেড়ে আত্মসমর্পণ করেছে প্রশাসনের কাছে। তাদের চাকরি, বাসস্থান দিয়েছে রাজ্য সরকার।এবার আত্মসমর্পণকারী আর‌ও ২২০ জন প্রাক্তন মাওবাদীর হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দিয়েছে রাজ্য সরকার। গতকাল চারটি জেলার আত্মসমর্পণকারী মাওবাদীদের হাতে একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ‌ পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের আয়োজিত এই ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান থেকে পশ্চিম মেদিনীপুরের ১১০ জন প্রাক্তন মাওবাদী, বাঁকুড়ার ১১ জন, ঝাড়গ্রামের ৮০ জন এবং পুরুলিয়ার ১৯ জনের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন-একরত্তি শিশু ভয়াবহ রেল দুর্ঘটনা থেকে বাঁচিয়ে দিল ক্যানিং লোকালকে।

গতকালের এই ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলাশাসক এবং জেলা পুলিশ সুপারসহ চারটি জেলার প্রাক্তন মাওবাদীরা। এই অনুষ্ঠানে তাদের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দিয়েছেন জেলাশাসক এবং জেলা পুলিশ সুপার।জানা গিয়েছে এই প্রাক্তন মাওবাদীরা বাংলার বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে নিজেদের দাবি নিয়ে যথেষ্ট বিক্ষোভ দেখিয়েছিল জেলাশাসকের দপ্তরে। একুশে নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর তাদের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন-জাল নোট পাচার। কালিয়াচকে ধৃত সপ্তম শ্রেণীর ফার্স্ট বয়।

অবশেষে কথামতো গতকাল তাদের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেওয়া হয়েছে। অস্ত্র ছেড়ে জীবনের মূল স্রোতে ফিরে আবার নতুন করে জীবন শুরু করার সুযোগ পেয়ে যথেষ্ট আপ্লুত প্রাক্তন মাওবাদীরা।ঝাড়গ্রামের পুলিশ সুপার জানিয়েছেন আজ থেকেই বিভিন্ন থানায় মাওবাদীদের ট্রেনিংয়ের সূত্রপাত হবে।

Related Articles

Back to top button