নিউজটেক নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“বছরের দুই কিস্তিতে পাওয়া যাবে ১০ হাজার টাকা।”- কৃষক বন্ধু প্রকল্পের ভাতা বৃদ্ধি করলেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে পশ্চিমবঙ্গে জয়জয়কার তৃণমূল কংগ্রেসের। ২১৩ টি আসন নিয়ে আবার তৃতীয়বারের জন্য সরকার গঠন করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি প্রথম থেকে প্রবল হবে চেষ্টা করেছিল নবান্নকে নিজেদের দখলে আনার। বিজেপির স্টার প্রচারকরা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা দিনের পর দিন বাংলার মাটিতে ব্যাপকভাবে প্রচার করেছেন, রোড শো করেছেন, কিন্তু তা সত্ত্বেও বাংলার মানুষের বিশ্বাস অর্জনে অসমর্থ হয়েছেন বিজেপির শীর্ষ নেতারা।

ভরাডুবি ঘটেছে বিজেপির। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, মুখ্যমন্ত্রীর বাংলার মানুষের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন প্রচার সভা থেকে দেওয়া জনমোহিনী প্রতিশ্রুতি গুলি এবারে তৃণমূলকে জয়ের মুখ দেখতে অনেকটাই অনুকূল পরিস্থিতি এনে দিয়েছে। এই প্রতিশ্রুতির মধ্যে অন্যতম ছিলো ‘কৃষক বন্ধু’ প্রকল্প।এই প্রকল্পের আওতায় এবার কৃষকদের দেওয়া হবে ১০ হাজার টাকা।

আরও পড়ুন-মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিকের মূল্যায়ন কিভাবে সম্ভব হবে তা জানানো হবে আগামীকাল।

ছয়মাস অন্তর কৃষকরা পাবেন ৫ হাজার টাকা করে। জানা গিয়েছে আজ বৃহস্পতিবার থেকেই জেলায় জেলায় কৃষকদের এই ভাতা প্রদান করা হবে। ‌ খেতমজুর এবং বর্গাদার দের ভাতা বৃদ্ধি করে ৪ হাজার টাকা করা হয়েছে।আজ সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, “পূর্বেই এই প্রকল্পের আওতায় চাষীদের আসতে গেলে জমির নথিপত্র দেখানো বাধ্যতামূলক ছিল।

আরও পড়ুন-“লকগেট খুলে জল নামানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।”- শহরবাসীকে আশ্বাস দিলেন ফিরহাদ হাকিম

‌ কিন্তু এখন হলফনামা পেশ করলেই এই ভাতা পেতে পারেন কৃষকরা।”এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, কৃষক বার্ধক্য ভাতা আগে ছিল ৭৫০ টাকা, সেটা বর্তমানে বৃদ্ধি পেয়ে করা হয়েছে এক হাজার টাকা ।কৃষক বন্ধু প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত কৃষক বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ১ লক্ষ।রাজ্য সরকার বর্তমানে শস্য বীমার প্রিমিয়াম বাবদ মোট ৭০০ কোটি টাকা প্রদান করে।

আরও পড়ুন-কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য সুখবর। আগামী ১ লা জুলাই থেকে বাড়তে চলেছে মহার্ঘ ভাতা।

যে সমস্ত জায়গায় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন কৃষকরা সেই সমস্ত অঞ্চলের ২ লক্ষ কৃষকদের নোনা স্বর্ণ ধান প্রদান করা হয়েছে।বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ফসলের ক্ষতি হলে রাজ্য সরকার কৃষকদের মোট ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্য করেছে।বর্তমানে সারা রাজ্য জুড়ে ১৮৬ টি কৃষক মান্ডি গঠন করা হয়েছে।৫০ লক্ষের‌ও বেশী জমিগুলির জন্য স্বাস্থ্য কার্ড প্রদান করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button